পঞ্চায়েত নির্বাচনের ঠিক আগে অবসর মুখ্যসচিবের, কেন্দ্রের কাছে মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন

পঞ্চায়েত নির্বাচন যখন দোরগোড়ায় ঠিক তখনই অবসর নেওয়ার কথা রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর। কারণ, হিসেব অনুসারে ৩০ জুন অবসর  নেবেন তিনি। এদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের ঠিক আগে মুখ্যসচিবের অবসর নিয়ে চাপে রাজ্য। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের কাছে মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন করেছে রাজ্য। তবে কেন্দ্রের তরফে এখনও কোনও উত্তর আসেনি। সূত্রের খবর, হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর মেয়াদ বৃদ্ধি না হলে, পরবর্তী মুখ্যসচিব হতে পারেন বর্তমান স্বরাষ্ট্রসচিব বিপি গোপালিকা। সে ক্ষেত্রে স্বরাষ্ট্রসচিব হতে পারেন বিবেক কুমার।

এর আগেও দেখা গিয়েছে, পূর্বতন মুখ্যসচিবের কার্যকালের মেয়াদ বৃদ্ধি পেয়েছে। অর্থাৎ অবসরের পরেও তিনি এক্সটেনশন পেয়েছেন। আবার অনেকে এক্সটেনশন প্রস্তাব পেয়েও গ্রহণ করেননি, এমন নির্দশনও রয়েছে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর এক্সটেনশন সংক্রান্ত ফাইল দিল্লির কর্মীবর্গ দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য এই দপ্তরটি খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অধীনে। এখনও হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর এক্সটেনশন সংক্রান্ত কোনও সবুজ সঙ্কেত আসেনি।

২০২১ সালে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্থলাভিষিক্ত হন হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। তাঁর আগে তিনি রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব ছিলেন। হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী ১৯৮৮ সালের ক্যাডারের আইএএস। মুখ্যসচিব হওয়ার আগে তিনি বেশ কিছু দিন অতিরিক্ত মুখ্যসচিবের দায়িত্ব সামলেছেন। তিনি অর্থসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবেরও দায়িত্ব সামলেছেন।

যশের পর দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী পর্যালোচনা বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী ও তৎকালীন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লিতে বদলির নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। তা নিয়ে প্রচুর জলঘোলা হয়। এরপরই অবসর নেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমানে তিনি মুখ্যমন্ত্রী প্রধান উপদেষ্টা। সেই বিতর্কের আবহেই মুখ্যসচিব হয়েছিলেন হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty + five =