আইইইএমএ-র উদ্যোগে কলকাতায় অনুষ্ঠিত হল বেঙ্গল পাওয়ার কনক্লেভ-২০২৩

ভারতে বৈদ্যুতিক, শিল্প ইলেকট্রনিক্স এবং সহযোগী সরঞ্জাম প্রস্তুতকারকদের শীর্ষ সংস্থা আইইইএমএ-এর উদ্যোগে কলকাতায় হয়ে গেল ‘বেঙ্গল পাওয়ার কনক্লেভ- ২০২৩’। শুক্রবারের এই কনক্লেভে সরকারের তরফ থেকে ২৫০ জনেরও বেশি প্রতিনিধি এদিনের এই কনক্লেভে অংশ নেন। এছাড়াও ছিলেন বিভিন্ন বৈদ্যুতিক ওসংশ্লিষ্ট শিল্পের প্রতিনিধি, পাওয়ার ইউটিলিটি এবং অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। এদিনের এই অনুষ্ঠান থেকে ‘দ্য বেঙ্গল স্টোরি- এ ক্রনিকল অফ পাওয়ার অ্যান্ড প্রগ্রেস’ নামে এক কফি টেবিল বইয়েরও উদ্বোধন হয়। এই কফি টেবিল বইটি তুলে ধরা হয়েছে আদতে বাংলার বিদ্যুৎ সেক্টরের অসাধারণ যাত্রার গল্প। সঙ্গে রাখা হয়েছে এর মাইলফলকের কথাও।

এদিনের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান আর এন সিং জানান, এখনকার দিনে চারটি প্রধান গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল ‘রোটি, কাপড়া, মাকান এবং বিজলি। সঙ্গে এও জানান, শিল্প এবং আইইইএমএ ছাড়া কোনও কিছুই অর্জন করা সম্ভব নয়। একইসঙ্গে তিনি এও জানান, গত দশকে অসাধারণ উন্নতি দেখা যাচ্ছে।যার জেরে ভারতে রয়েছে এখন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পাওয়ার ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক।এরই পাশাপাশি তিনি পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির ব্যবহারের উপর এবং রাজ্যে পাম্প হাইড্রো স্টোরেজের উপর জোর দেন। এদিকে রাজ্য সরকারের বিদ্যুৎ বিভাগের যুগ্ম সচিব প্রলয় মজুমদার জানান, কোনও রাজ্যের পরিকাঠামোর ব্লাড লাইন হল পাওয়ার অর্থাৎ বিদ্যুৎ। সঙ্গে এও জানান, শিল্পের ভারসাম্য আনতে হলে নবায়নযোগ্য অর্থাৎ রিনিউয়েবল এনার্জি এবং প্রচলিত শক্তির উৎস, এই দুটির ওপরেই জোর দিতে হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − five =