বাড়িতেই চিকিৎসা, আগের থেকে ভাল আছেন মুখ্যমন্ত্রী

আপাতত বাড়িতেই চিকিৎসা চলছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের। শুক্রবারও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তাঁর শারীরিক অবস্থা খতিয়ে দেখে আসেন বাড়ি গিয়ে। এসএসকেএম এর ডিরেক্টর মণিময় বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, আগের তুলনায় কিছুটা ভাল আছেন তিনি। যন্ত্রণাও আগের থেকে কমেছে। তবে ফিজিওথেরাপি এখনও চালিয়ে যেতে হবে মুখ্যমন্ত্রীকে।

উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত ভোটের আগে রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায় সভা করার কথা ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের। উত্তরবঙ্গ থেকে তা শুরুও করে দিয়েছিলেন। কোচবিহারে সভা করেছেন। জলপাইগুড়িতে সভা করেছেন। আর তারপরই এই বিপত্তি। চোট পাওয়ার আগে পর্যন্ত যেমন শোনা যাচ্ছিল, তাতে ৩০ তারিখ অর্থাৎ শুক্রবার থেকেই আবার মমতার জেলা সফর শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হেলিকপ্টারে চোট পাওয়ার ফলে, তা এখনও শুরু করতে পারেননি মমতা। কবে থেকে আবার বেরতে পারবেন সে ব্যাপারে চিকিৎসক মণিময় বন্দ্যোপাধ্যায় এখনই সেভাবে আশার কথা শোনানি। জানালেন, কবে থেকে তিনি বেরতে পারবেন, তা এখনই বলতে পারছেন না চিকিৎসকরা। প্রতিদিন তাঁর চিকিৎসা চলছে ও শারীরিক অবস্থা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী সেদিন পায়ে চোট পাওয়ার পর কলকাতায় ফিরে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তাঁকে। সেখানে উডবার্ন ব্লকে রাখা হয়েছিল মমতাকে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে একটি মেডিক্যাল বোর্ডও গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি হতে চাননি তিনি। তাই বাড়িতেই চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সেদিন এসএসকেএম-এ ঢোকার সময়ে মমতাকে কিছুটা খুড়িয়ে খুড়িয়ে ঢুকতে দেখা গিয়েছিল। আর পরে যখন তিনি হাসপাতাল থেকে বেরোন, তখন হুইল চেয়ারে করেই বেরতে হয়েছিল। মুখ্যমন্ত্রী যে গাড়িতে যাতায়াত করেন, সেই গাড়ির বদলে অন্য একটি গাড়ি আনা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর সুবিধার জন্য।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 1 =