পুজোতেও ‘না’ গড়িয়া-রুবি মেট্রোর

পুজোতেও চালানো হবে না গড়িয়া থেকে রুবি মেট্রো। কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমতি পাওয়ার পরেও যাত্রী পরিষেবায় আপাতত ‘না’। কারণ, সেই সিগন্যাল। এদিকে বাহানাগার ঘটনা শিক্ষা দিয়েছে মেট্রোকে। বাহানাগায় দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ ছিল সিগন্যাল। এদিকে গড়িয়া-রুবি মেট্রো পথে এখনও ফুলপ্রুফ নয় সিগন্যাল। তাই আগামী ডিসেম্বর লক্ষ্যমাত্রা বাইপাসের নতুন মেট্রোর। অন্যদিকে জোকা থেকে মাঝেরহাট একমুখী মেট্রো চালিয়ে অর্থনৈতিক ভাবে লাভ হয়নি মেট্রোর। ফলে এই মুহূর্তে খরচের বহর বাড়াতে চাইছে না মেট্রো।

এখানে বলে রাখা শ্রেয়, এই লাইনের ট্রায়াল রান হয়েছিল গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে। তারপরে রেলওয়ে সেফটি কর্তৃপক্ষের পরিদর্শনও হয়েছে। প্রস্তুতি খতিয়ে দেখার সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই মিলে গিয়েছিল ছাড়পত্র। এই পথে ন্যূনতম ভাড়া ৫ টাকাই থাকছে। নিউ গড়িয়া থেকে রুবি পর্যন্ত যেতে গেলে সর্বোচ্চ ভাড়া ২০ টাকা। তবে নিউ গড়িয়া বা কবি সুভাষ স্টেশন প্রথম কোনও জংশন মেট্রো স্টেশন হতে চলেছে।

দক্ষিণেশ্বর থেকে নিউ গড়িয়া অবধি মেট্রো চলে। সেই মেট্রোর সঙ্গে কানেক্ট হয়ে যাবে নিউ গড়িয়া থেকে রুবি। নিউ গড়িয়া থেকে দক্ষিণেশ্বর রুটের দৈর্ঘ্য ৩১ কিলোমিটার। এটি ব্লু লাইন হিসেবে পরিচিত। অন্য দিকে অরেঞ্জ লাইনে নিউ গড়িয়া থেকে এয়ারপোর্টের দূরত্ব প্রায় ৩০ কিমি। তার মধ্যে নিউ গড়িয়া থেকে রুবি মোড়ের দূরত্ব ৫.৪ কিলোমিটার। রয়েছে ৫টি স্টেশন। অরেঞ্জ লাইন চালু হলে কবি সুভাষ বা নিউ গড়িয়া হবে কলকাতা মেট্রোর প্রথম জংশন স্টেশন। দক্ষিণেশ্বর থেকে এক টোকেনে আসা যাবে রুবি মোড় পর্যন্ত। এতদিন মেট্রো করে দমদম থেকে রুবি আসার সুযোগ ছিল না। কিন্তু মেট্রো যোগাযোগ হয়ে গেলে মেট্রোর মাধ্যমেই যাতায়াত করা যাবে। উপকৃত হবেন বহু নিত্যযাত্রী।

নিউ গড়িয়া থেকে রুবি রুটের মধ্যে মোট পাঁচটি স্টেশন রয়েছে। সেগুলি হল কবি সুভাষ, সত্যজিৎ রায়, জ্যোতিরিন্দ্র নন্দী, কবি সুকান্ত এবং হেমন্ত মুখোপাধ্যায় অর্থাৎ রুবি। এ দিকে, নিউ গড়িয়া বা কবি সুভাষ মেট্রো স্টেশনটিকে ‘জংশন’ স্টেশন হিসাবে তৈরি করার পাশাপাশি অত্যাধুনিক ভাবে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক কৌশিক মিত্র জানিয়েছেন, সমস্ত ধরণের পরিস্থিতি বিবেচনায় রাখা হচ্ছে। অত্যন্ত দ্রুততার সাথে চলছে সিগন্যাল ব্যবস্থার কাজ। আশা করা যায়, শীঘ্রই মেট্রোর কাজ শেষ হবে। মন্ত্রক অনুমতি দিলেই ছুটবে মেট্রো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen + thirteen =