পায়ে চোট, কলকাতায় এলেন মুখ্যমন্ত্রী, এসএসকেএম-এ করা হল চিকিৎসার বন্দোবস্ত

সেবক এয়ারবেসে চপারের জরুরি অবতরণ চলাকালীন চোট পান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর পায়ে ও কোমরে চোট পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবার দুপুরে জলপাইগুড়িতে নির্বাচনী সভা করেন মমতা। সেখান থেকে ফেরার পথে আচমকা ভয়াবহ দুর্যোগের মুখে পরে মুখ্যমন্ত্রীর চপারটি। এমার্জেন্সি ল্যান্ডিং-এ হেলিকপ্টার নামানো হয় সেবক এয়ারবেসে। সেই সময়েই চোট পান মমতা।

সেবকে ওই ঘটনার পর কলকাতায় ফেরেন মমতা। কলকাতা বিমানবন্দরে নামার পর সেখান থেকে তাঁকে সরাসরি এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এদিকে ততক্ষণে মুখ্যমন্ত্রীর কলকাতায় ফেরার খবর পেয়ে এসএসকেএম হাসপাতালে মুখ্যমন্ত্রীর চিকিৎসার সমস্ত প্রস্তুতিও শুরু হয়।বিমানবন্দরের বাইরে প্রস্তুত রাখা হয় অ্যাম্বুল্যান্স। খবর পেয়ে এসএসকেএমে পৌঁছান স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগম। উপস্থিত থাকতে দেখা যায়, এসএসকেএমের ডিরেক্টর মনিময় বন্দ্যোপাধ্য়ায়কেও। মেডিসিন বিভাগের প্রধান রাজেশ প্রামাণিককে ডেকে পাঠানো হয়। সূত্রে খবর, ভিভিআইপি কেবিনে প্রস্তুত রয়েছেন তিনি। এদিকে হাসপাতালে উপস্থিত হন পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারাও। এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টারের জরুরি অবতরণের পর তাঁর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস।

এরপর বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে সোজা এসএসকেএমে নিয়ে যাওয়া হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। কেমন আছেন, জানতে চাওয়া হলে গাড়িতে বসেই তিনি বোঝান যে তাঁর পায়ে লেগেছে।

এরপর এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ব্লকে নিয়ে যাওয়া হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে। গাড়ি থেকে নামার সময় খুঁড়িয়ে হাঁটতেও দেখা যায় তাঁকে। পায়ে চোট রয়েছে, তাই হাঁটতে অসুবিধা হচ্ছে। বাঁ পা ফেলতে পারছেন না তিনি। তবে হুইল চেয়ার বা স্ট্রেচার আনা হলেও তা নিতে চাননি তিনি। এরপর মুখ্যমন্ত্রীকে ধরে ভিতরে নিয়ে যাওয়া হয়। মুখ্যমন্ত্রীর এই খবর পেয়ে একে একে নেতা-মন্ত্রীরা পৌঁছান এসএসকেএমে। মমতা পৌঁছনোর পরই হাসপাতালে প্রবেশ করেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, মেয়র ফিরহাদ হাকিম, বিধায়ক দেবশিস কুমার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 − one =