ইসরোতেও নিয়োগ দুর্নীতি, বাতিল পরীক্ষা

ইসরোর ‘নিয়োগ দুর্নীতি’-র অভিযোগ। পরীক্ষায় নকল করার অভিযোগে হরিয়ানা থেকে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। একইসঙ্গে বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারের তরফ থেকে বাতিল করা হয় পরীক্ষাও। অভিযোগ, বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারে নিয়োগের পরীক্ষায় ভুয়ো পরীক্ষার্থী সেজে ঢুকেছিল তারা। কেরালা পুলিশের হাতে পাকড়াও এই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ইতিমধ্য়েই তদন্ত শুরু হয়েছে।

সূত্রে খবর, গত ২০ অগাস্ট তিরুঅনন্তপুরমের একাধিক সেন্টারে পরীক্ষা দিচ্ছিলেন অসংখ্য প্রার্থী। দু’টি আলাদা আলাদা সেন্টার থেকে এই দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে কেরালা পুলিশ। দু’জনের বিরুদ্ধেই নকল করার অভিযোগ রয়েছে। দু’জনেই ভুয়ো পরীক্ষার্থী বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাদের কাছে পরীক্ষার বৈধ কোনও কাগজ মেলেনি। এই ঘটনার একটি বড়সড় ব়্যাকেট কাজ করছে বলে জানানো হয়েছে। হরিয়ানার আরও কয়েকজন সন্দেহভাজনকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, কেবলমাত্র হরিয়ানা থেকেই ইসরোর এই বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারের নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন প্রায় ৪০০ জন। এই পরীক্ষা দুর্নীতিতে কোচিং সেন্টারগুলি যুক্ত রয়েছে কি না, তাও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। কেরালা থেকে তদন্তকারীদের একটি দল হরিয়ানা গিয়ে তল্লাশি চালাবে বলেই সূত্রে খবর।

কেরালার ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ (আইন শৃঙ্খলা) অজিত ভি বলেন, ‘পরীক্ষার দিন স্পেশ্যাল ব্রাঞ্চ এবং মিউজিয়াম পুলিশ থেকে আমরা খবর পাই ভুয়ো পরীক্ষার্থী সেজে একাধিক সেন্টারে পরীক্ষা দেওয়া হচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে তল্লাশি শুরু হয় এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়। মোবাইল ফোন সঙ্গে করে নিয়ে সেন্টারে পরীক্ষায় বসেছিল এই দুই ভুয়ো পরীক্ষার্থী। হাতে নাতে পাকড়াও করা হয় তাদের। শার্টের বোতামে ক্যামেরা ফিট করে স্ক্যানিং করা হচ্ছিল। সেগুলি ইতিমধ্যেই ফরেনসিক টেস্টের জন্য পাঠানো হয়েছে। এদিকে বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে ওয়েবসাইটে পরবর্তী পরীক্ষার দিন জানানো হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + fifteen =