দলীয় বিধায়কদের নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অফিসে শুভেন্দু

হঠাৎ-ই রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অফিসে হাজির বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুক্রবার বিকেলের দিকে বিজেপির অন্যান্য বিধায়কদের সঙ্গে নিয়ে সটান হাজির হন কমিশনের অফিসে। সূত্রে খবর, এদিন তাঁর সঙ্গে ছিলেন বঙ্গ বিজেপির তিন বিধায়ক, মনোজ টিগ্গা, সুশীল বর্মণ ও সত্যেন রায়। এদিকে সূত্রে খবর,  প্রায় আধ ঘণ্টা মতো কমিশনের অফিসে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে শুভেন্দুদের। তবে কেন শুভেন্দু হঠাৎ-ই বিজেপি বিধায়কদের নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অফিসে আসেন তা নিয়ে তৈরি হয় ধোঁয়াশা। এমনকী শুভেন্দু বা বিজেপির অন্যান্য বিধায়কেরাও এ ব্যাপারে মুখে কুলুপ আঁটেন।  রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা মুখ না খুললেও অনুমান করা হচ্ছে নির্বাচন কমিশনে যে বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সঞ্জয় বনসলকে, সেই বিষয়টি নিয়ে হয়তো রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কথা বলতে পারেন শুভেন্দু। এর পাশাপাশি রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন পর্বে এবং তারপরও যে অশান্তির চিত্র ফুটে উঠতে শুরু করেছে, সেই সব বিষয়গুলি নিয়েও রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কথা হয়ে থাকতেই পারে তাঁর।

উল্লেখ্য, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সচিব পদে বর্তমানে দায়িত্বে রয়েছেন নীলাঞ্জন শাণ্ডিল্য। সম্প্রতি পঞ্চায়েত ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার পর নির্বাচন কমিশনারকে সাহায্য করতে বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয় অভিজ্ঞ আমলা সঞ্জয় বনসলকে। তিনি বর্তমানে অনগ্রসর শ্রেণি ও সমাজ কল্যাণ দপ্তরের সচিব পদের দায়িত্বে রয়েছেন। এদিকে অনেকেই দাবি তুলেছেন, এমনভাবে সঞ্জয় বনসলকে দায়িত্ব দেওয়া অবৈধ। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারনা, সেই বিষয়টি নিয়েই রাজ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব সিনহার সঙ্গে কথা বলতেও পারেন শুভেন্দু অধিকারী।

প্রসঙ্গত, পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়নের সময় থেকেই অশান্তির সাক্ষী থেকেছে বাংলা। কোথাও রক্ত ঝরেছে, কোথাও বোমা ফেটেছে, মৃত্যু হয়েছে। পঞ্চায়েত ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার পর থেকে মৃত্যুর কথা স্বীকার করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশনও। আর এসবের মধ্যেই শুভেন্দুর শুক্রবার বিকেলের দিকে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অফিসে আসার ঘটনা যথেষ্টই তাৎপর্যপূর্ণ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − fifteen =