মঙ্গলবার পর্যন্ত বাড়বে তাপমাত্রা, নতুন করে ঘূর্ণাবর্ত তৈরির সম্ভাবনা

রাজ্যে বাড়বে তাপমাত্রা, কমবে বৃষ্টি। আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও দিনভর। আপাতত ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই রাজ্যে। উত্তরবঙ্গের উপরের দিকের জেলাতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি। তবে সপ্তাহের মাঝেই হাওয়া বদল। আবারও বৃষ্টির স্পেল দক্ষিণবঙ্গে।

এদিকে রবিবার কলকাতায় আংশিক মেঘলা আকাশ। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা বৃষ্টিও হয়। তবে রবিবার থেকেই বাড়ছে তাপমাত্রা। মঙ্গলবার পর্যন্ত বাড়বে এই তাপমাত্রা।  সঙ্গে থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। রবিবার কলকাতায় সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিক তাপমাত্রার থেকে এক ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিক বলেই জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ৭০ থেকে ৭৪ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছে ৯.৯ মিলিমিটার। আগামী ২৪ ঘণ্টায় কলকাতা শহরে তাপমাত্রা থাকবে ২৮ থেকে ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বঙ্গোপসাগরে নতুন করে ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে মঙ্গলবার। ঘূর্ণাবর্ত শক্তি বাড়িয়ে ওড়িশা উপকূলের দিকে এগোবে। বুধবার থেকে রবিবারের মধ্যে আরও একটি বৃষ্টির স্পেল দক্ষিণবঙ্গে।এদিকে মৌসুমী অক্ষরেখা বিকানের, কোটা, সাগর ডালটনগঞ্জ, বাঁকুড়া হয়ে দিঘার ওপর দিয়ে পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব দিকে এগিয়ে উত্তর পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। নিম্নচাপ শক্তি হারিয়ে ঘূর্ণাবর্তে পরিণত। মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থান সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান। এদিকে আরও এক ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে আন্দামান সাগরে। এরপর নতুন করে একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে বঙ্গোপসাগরে। উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগরে এই ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে। মঙ্গলবার এই ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা। এর প্রভাবে বুধবার থেকে রবিবার পর্যন্ত আবহাওয়ার পরিবর্তন হবে দক্ষিণবঙ্গে। এই ঘূর্ণাবর্ত ওড়িশা অভিমুখী থাকবে। যার জেরে দক্ষিণবঙ্গে আংশিক মেঘলা আকাশ। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্তভাবে হালকা বৃষ্টির খুব সামান্য সম্ভাবনা। বৃষ্টির পরিমাণ আরও কমবে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে।ফলে সামগ্রিক ভাবে আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রা সামান্য বাড়বে। সোমবারের মধ্যে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে অনুমান আবহাওয়াবিদদের। বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকায় তাপমাত্রা বাড়লে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি বাড়বে।তবে ফের মঙ্গলবার থেকে আবহাওয়ার পরিবর্তন হবে। বুধবার থেকে রবিবারের মধ্যে আরও একটি বৃষ্টির স্পেল হতে পারে দক্ষিণবঙ্গে। উপকূল ও ওড়িশা সংলগ্ন জেলাগুলিতে বৃষ্টি বেশি হওয়ার সম্ভাবনা।

এদিকে উত্তরবঙ্গে উপরের দিকে বিক্ষিপ্তভাবে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি চলবে। ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে বিক্ষিপ্তভাবে সামান্য দু-এক পশলা হালকা মাঝারি বৃষ্টি। এই বৃষ্টির ফলে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার তাপমাত্রা কম থাকবে। বুধবার থেকে বৃষ্টির সম্ভাবনা কমবে, বাড়বে তাপমাত্রা। মালদহ, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকবে। এদিকে উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আগামী কয়েক দিন। পূর্ব ভারতের রাজ্য অসম, মেঘালয়, মণিপুর, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, অরুণাচল প্রদেশ ও ত্রিপুরাতে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি চলবে আগামী চার-পাঁচ দিন। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি আগামী তিন চার দিন। ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকবে অন্ধ্রপ্রদেশ, ইয়ানাম, তেলেঙ্গনা, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, কেরল, মাহে, মহারাষ্ট্র, গুজরাত এবং মধ্যপ্রদেশে। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হবে জম্মু ও কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, দিল্লি, পঞ্জাব-সহ উত্তর পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + three =