আমজনতার জন্য ২০০ টাকা দাম কমল এলপিজি সিলিন্ডারের

কমানো হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডারের দাম। দেশজুড়ে সকল গ্রাহকদের জন্য রাখির আগে বাম্পার ঘোষণা কেন্দ্রের। ২০০ টাকা করে কমানো হচ্ছে এলপিজি সিলিন্ডারের দাম। মঙ্গলবার থেকেই সিলিন্ডারে ভর্তুকি লাগু হচ্ছে বলে জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। নিঃসন্দেহে ক্যাবিনেটের এই ঘোষণায় বড় স্বস্তি পেল মুদ্রাস্ফীতিতে চাপে থাকা সাধারণ মানুষ। এরফলে ২০০ টাকা কম দিয়েই গ্যাস সিলিন্ডার পাবে আমজনতা। তবে অনেকেই মনে করছেন লোকসভা ভোট আর বেশ কিছু রাজ্যে সামনেই বিধানসভা ভোটের কারণেই এমন পদক্ষেপ কেন্দ্রীয় সরকারের।

জ্বালানির দাম এই মুহূর্তে সারা দেশেই চড়া। এলপিজি-ও সেই তালিকাতেই রয়েছে। কলকাতায় বর্তমানে গার্হস্থ্য এলপিজি সিলিন্ডারের দাম রয়েছে ১১২৯ টাকা। কেন্দ্রের নতুন ঘোষণার ফলে কলকাতায় গ্যাসের দাম হতে চলেছে ৯২৯ টাকা। যা কিনা দেশের চার মেট্রো শহরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। অন্যদিকে শহরে বাণিজ্যিক গ্যাস সিলিন্ডারের দাম রয়েছে ১৮২০টাকা ৫০ পয়সা।

এলপিজি-র দাম কমানোর ঘোষণার পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর জানান, ‘এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে নির্বাচনের কোনও সম্পর্ক নেই। দেশের ৩৩ কোটি ব্যবহারকারীকে সুবিধা দেওয়ার লক্ষ্যেই এই ছাড় দেওয়া হয়েছে।’

অন্যদিকে, উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় থাকা মহিলাদের জন্যও রয়েছে সুখবর। এই যোজনায় আরও ৭৫ লাখ কানেকশনে দিয়েছে সরকার। বর্তমানে গ্যাস সিলিন্ডার বুকিংয়ের ক্ষেত্রে কোনও উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় থাকা মহিলা ২০০ টাকা করে ভর্তুকি পান। ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি ভর্তুকির পরিমাণ জমা করা হয়। অর্থাৎ উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় থাকা কোনও মহিলা গ্যাস বুকিংয়ের সময় যে টাকা দিয়ে গ্যাস বুকিং করবেন পরবর্তীতে তাঁর ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে ২০০ টাকা ভর্তুকি হিসেবে ফেরত দেওয়া হয়। ওই ভর্তুকির পরিমাণও ২০০ থেকে ৪০০ টাকা বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।

এখানে বলে রাখা শ্রেয়, বর্তমানে দেশের প্রায় ৯.৬ কোটি মানুষ উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় রয়েছে। এই যোজনার আওতায় সুবিধাভোগীরা বছরে ১২ টি গ্যাস সিলিন্ডারে ভর্তুকি পান। প্রতি পরিবারের একজন মহিলা এই যোজনার আওতায় আসেন। মূলত, দরিদ্র শ্রেণির উপর থেকে মুদ্রাস্ফীতির বোঝা কমাতেই এই ভর্তুকি চালু করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার।

মোদি সরকারের এই যোজনার ফলে দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী প্রায় ১০ লাখ পরিবারে গ্যাস কানেকশন হয়েছে। যোজনার আওতায় ওভেনও বিনামূল্যে দেওয়া হয়ে থাকে। ফলে বহু পরিবার কাঠ- কয়লার উনুন ছেড়ে বর্তমানে এলপিজি সিলিন্ডারের সুবিধা নিতে পেরেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 2 =