বেশি ভাড়া নিলে কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি পরিবহণমন্ত্রীর

রাজ্য সরকার বাস ভাড়া বেঁধে দেওয়ার পরও বেশ কিছু ক্ষেত্রে বেশি ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ উঠছে বেশ কিছু বেসরকারি রুটে। যাত্রীরা অনেক সময়েই অভিযোগও জানাচ্ছেন। এবার এই বাড়তি ভাড়া চাওয়ার তথ্য প্রমাণ দিতে পারলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে এমনই বার্তা দিলেন পরিবহণমন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী। একইসঙ্গে তিনি এও জানান, আপাতত ভাড়া বাড়ানো হবে না। সঙ্গে মন্ত্রী এও জানান, ‘সব সংগঠনের কাছে ভাড়ার চার্ট আছে, সেই চার্ট রেখেই বাস চালাতে হবে।’

সোমবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পরিবহণ মন্ত্রী জানান, মুখ্যমন্ত্রী কোনও ভাড়া বাড়াতে চান না। তার জন্য রাজ্য সরকারকে যদি কিছু ক্ষতিও মানতে হয় তাতেও রাজি। সঙ্গে পরিবহণ মন্ত্রীর সংযোজন, ‘সরকার প্রয়োজনে ভর্তুকি দিয়ে চালাতে পারে, তবে সাধারণ মানুষের থেকে বেশি টাকা নিতে পারে না। তবে বেসরকারি বাসগুলো চায় কিছু লাভ করতে।’ এরই রেশ ধরে পরিবহণমন্ত্রী এও বলেন, ‘বেসরকারি বাস সংগঠনগুলো যদি নিজেরা ভাড়া ঠিক করতে পারত, তাহলে সরকারকে হস্তক্ষেপ করতে হত না।’

উল্লেখ্য, কোভিড আবহে বা লকডাউন উঠে যাওয়ার পর বেসরকারি বাসগুলোর বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। বিভিন্ন রুটে যাত্রীরা অভিযোগ সামনে আনার পর হস্তক্ষেপ করে রাজ্য সরকার। গত এপ্রিলেই রাজ্য স্পষ্ট বার্তা দিয়েছে, ভাড়া বাড়ানো যাবে না, ২০১৮ সালে যে ভাড়া ছিল, সেই অনুসারেই বাস চালাতে হবে। সাধারণ বাসে ন্যূনতম ৭ টাকা এবং মিনিবাসে ন্যূনতম 8 টাকা হারে ভাড়া নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four + 17 =