সোমবার যাদবপুরে ইউজিসির প্রতিনিধিরা

যাদবপুর প্রথম বর্ষের ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় রিপোর্টে মোটেই সন্তুষ্ট নয় ইউজিসি। আর সেই কারণেই সোমবারই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে আসছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা ইউজিসির টিম।

প্রসঙ্গত, প্রথমবর্ষের পড়ুয়ার রহস্যজনক মৃত্যুর থেকেই প্রশ্নের মুখে পড়েছে যাদবপুরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। রাজ্য়ের ১ নম্বর এই বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠতেই তা নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় শিক্ষা মহলে। তদন্তে নেমে পুলিশ এখনও পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। যার মধ্যে একজন অবশ্য জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। এদিকে আবার এই পাশাপাশি আলাদাভাবে তদন্ত করছে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটি। এদিকে ঘটনার পরই যাদবপুরকে দফায় দফায় চিঠি দিয়েছিল ইউজিসি। ক্ষোভও প্রকাশ করা হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকা নিয়ে।

অভিযোগ, সিসিটিভি লাগানো থেকে নিরাপত্তাব্যবস্থা, বহু ক্ষেত্রেই হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট এমনকী ইউজিসির গাইড লাইন মানছে না যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। কেন তা মানা হবে না সেই প্রশ্ন তুলে আগেই যাদবপুরে চিঠি পাঠানো হয়েছিল ইউজিসি-র তরফ থেকে। প্রথম দফায় উত্তরও দেয় যাদবপুর। কিন্তু, তখনই শোনা যায় যাদবপুরে আসতে পারে ইউজিসির প্রতিনিধি দল। যদিও রেজিস্ট্রার স্নেহমঞ্জু বসু দাবি করেছিলেন তাঁদের উত্তরে সন্তুষ্ট হয়েছে ইউজিসি। কিন্তু এরপরই আরও এক চিঠি আসে যাদবপুরে। আগের উত্তরে যে সন্তুষ্ট নয় ইউজিসি, তা জানানো হয়। ফের চাওয়া হয় উত্তর। এবার তাঁদের টিমের ক্যাম্পাসে আসার সিদ্ধান্তে নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে শিক্ষা থেকে রাজনীতি সহ নানা মহলে।

সূত্রে এ খবরও মিলছে, ক্যাম্পাসে এসে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এবং ছাত্রদের সাথে কথা বলবে ইউজিসি-র এই বিশেষ দল। ক্যাম্পাসের সামগ্রিক অবস্থা, পরিস্থিতি, ঘটনার পরের পরিবেশ বুঝে দেখারও চেষ্টা করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে চিন্তিত ইউজিসি। সে কারণেই এই পদক্ষেপ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। সূত্রের খভর ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকবে বেশ কয়েকদিন। অন্যদিকে বিতর্কের আবহেই যাদবপুরে বসতে চলেছে সিসিটিভি। একইসঙ্গে র‌্যাগিং রোধে ইসরোকে সঙ্গীও করতে চলেছে যাদবপুর।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + one =