সিসি ক্যামেরা বসাতে যাদবপুরকে  ৩৮ লক্ষ টাকা শিক্ষা দফতরের

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সিসি ক্যামেরা বসানোর তোড়জোড় শুরু হলেও তার খরচ নিয়ে উদ্বেগে ছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সূত্রে খবর, সিসিটিভি বসানোর জন্য অর্থসাহায্য চেয়ে রাজ্য সরকারের কাছে আবেদনও জানিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়। আর সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে সিসি ক্যামেরা লাগানো জন্য ওই খাতে প্রায় ৩৮ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করল শিক্ষা দফতর। নবান্ন সূত্রে খবর, এই বিষয়টি অর্থ দফতরের বিচারাধীন ছিল। অর্থ দফতর সবুজ সঙ্কেত দেওয়ার ফলে টাকা বরাদ্দ করতে আর কোনও বাধা রইল না। জানা গিয়েছে, মোট ৩৭ লক্ষ ৩৮ হাজার ৪৮৪ টাকা সরাসরি পৌঁছে যাবে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। চলতি সপ্তাহেই এই সংক্রান্ত প্রশাসনিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে টাকা মঞ্জুর হলেও সিসি ক্যামেরা লাগানোর কাজ কবে শুরু হবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সিসি ক্যামেরা কবে বসবে এই বিষয়ে দিন কয়েক আগে যাদবপুরের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য বুদ্ধদেব সাউ জানান, তিনি অনুমোদন দিয়েছেন। তবে সেগুলি কবে থেকে বসানো হবে, সেই বিষয়ে যাঁরা দায়িত্বপ্রাপ্ত তাঁরা বলতে পারবেন। একইসঙ্গে ওএটি অর্থাৎ ওপেন এয়ার থিয়েটারে ক্যামেরা বসানো হবে কি না, সেই প্রশ্নের উত্তরে উপাচার্য বলেছিলেন, গেটের কাছে যদি সিসিটিভি রাখা হয় এবং মাদক দ্রব্য পরীক্ষা করার কোনও ব্যবস্থা কার যায় তাহলে ওএটি-তে না দিলেও চলতে পারে। যাদবপুরে সিসিটিভি লাগানোর বিষয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সরকারি সংস্থা ওয়েবেলকে।

প্রসঙ্গত, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরেই সরগরম রাজ্যের শিক্ষামহল। ব়্যাগিংয়ের জেরেই ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ। ঘটনায় ইতিমধ্যেই বেশকয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। পুলিশ মনে করছে, ঘটনায় আরও অনেকে যুক্ত থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকিদের নামও জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। অন্যদিকে ঘটনায় ইতিমধ্যেই চড়তে শুরু করেছে রাজনৈতিক পারদ। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস-সহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে যাদবপুরে সিসিটিভি বসানোর দাবি উঠেছে। এমনকী তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চে, যাদবপুরে সিসিটিভি বসানো হবেই, বলে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই নবান্ন সূত্রে সামনে এল এই অর্থ মঞ্জুরের খবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + 4 =