পঞ্চায়েত ভোটে সিবিআই-এর নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে এবার ডিভিশন বেঞ্চে রাজ্য

পঞ্চায়েত ভোটে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে সরকারি আধিকারিকদের বিরুদ্ধে নথি বিকৃত করার অভিযোগ সংক্রান্ত একটি মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। এবার এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে গেল রাজ্য। প্রাথমিক সূত্র অনুযায়ী, বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে দায়ের করা হয়েছে এই মামলা এবং শুক্রবার মামলাটির শুনানি হতে পারে।

উল্লেখ্য, হাওড়ার উলুবেড়িয়ার ১ নম্বর ব্লকের দুই সিপিএম প্রার্থী কাশ্মীরা বিবি এবং অনুজা বিবি মনোনয়নপত্র বিকৃত করার অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তাঁদের দাবি ছিল, ওবিসি হওয়ার পরেও মনোনয়নপত্রের চেকলিস্টে তা উল্লেখ করা হয়নি। আর এই কারণে স্ক্রুটিনিতে তাঁদের নাম বাদ পড়ে যায়। এই মর্মে তাঁরা অভিযোগ জানাতে গেলেও বিডিও সেই অভিযোগ নেননি বলে অভিযোগ তোলেন এই প্রার্থীরা। এরপরেই মামলা গড়িয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট পর্যন্ত।

বুধবার মামলাটির শুনানি হয়েছিল অমৃতা সিনহার বেঞ্চে। মামলা চলাকালীন বিচারপতি অমৃতা সিনহা জানান, ‘এই ঘটনায় যেহেতু সরকারি আধিকারিকের বিরুদ্ধে নথি বিকৃত করার অভিযোগ উঠেছে, তাই তদন্তের ভার রাজ্যের কোনও এজেন্সিকে দেওয়া উচিত হবে না।‘ বিচারপতি সিনহার এই নির্দেশ রাজ্যের জন্য বড় ধাক্কা বলেই মনে করা হচ্ছিল। এরপরই সিঙ্গল বেঞ্চের এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার।

ফলে বঙ্গ রাজনীতিতে এখন যে জল্পনা চলছে তা হল, পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে কি সিবিআই তদন্তের এই নির্দেশে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েও রাজ্য সরকার আদৌ স্বস্তি পাবে কি না তা নিয়ে।

কারণ, পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে গোটা রাজ্যে অশান্তির ছবি দেখা গিয়েছিল। প্রধান বিচারপতি টিএসশিবজ্ঞানমের ডিভিশন বেঞ্চ কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট করানোর নির্দেশ দিয়েছে। কিন্তু, এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল রাজ্য এবং রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কিন্তু, কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে কোনওরকম হস্তক্ষেপ করেনি সুপ্রিম কোর্ট। অর্থাৎ কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়েই হবে নির্বাচন। ফলে সেখানেও ধাক্কা খায় রাজ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − four =