অন্ধ্র প্রদেশে মৃত ছাত্রীর বাবার সঙ্গে ফোন কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

যাদবপুরের হস্টেলে ছাত্র মৃত্যুর ঘটনার মাঝেই অন্ধ্রে অপর এক পড়ুয়ার রহস্যমৃত্যুর ঘটনা সামনে এল। দক্ষিণ কলকাতার ওই কিশোরী রীতি সাহা নিট পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে গিয়েছিলেন অন্ধ্র প্রদেশের ভাইজ্যাকে। সেখানেই বেসরকারি হস্টেলে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হয় তার। ১৭ বছরের রীতিকে খুন করা হয় বলে অভিযোগ ছাত্রীর বাবা শুকদেব সাহার। এদিকে তাঁর মেয়ে সুইসাইড করেছে বলে প্রমাণ করার চেষ্টা চলছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এই ঘটনা সামনে আসতেই রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস যান রীতির নেতাজি নগরের বাড়িতে। সেখানে গিয়ে তিনি দেখা করেন রীতির বাবা এবং পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে। এরই পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রীতির বাবার ফোনে কথা বলিয়ে দেন মন্ত্রী অরূপ। মুখ্যমন্ত্রীকে গোটা অভিযোগ জানান তিনি। এই ফোনের বিষয়ে রীতির বাবা শুকদেব জানান, ‘মুখ্যমন্ত্রী সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। রাজ্য সরকারে তরফে তদন্ত করানোর কথা বলেছেন। মুখ্যমন্ত্রী কিছু একটা ব্যবস্থা নিশ্চয় করবেন বলে আমার বিশ্বাস।‘ মেয়ের রহস্যমৃত্যু নিয়ে তিনি এও বলেন, ‘আমার মেয়েকে খুন করা হয়েছে। খুন করে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা চলছে। কে বা কারা কেন খুন করল তা আমি জানতে চাই। এর বিচার চাইছি।’ রবিবার দুপুরে রীতির বাড়িতে যান সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীও।

এদিকে রীতি সাহার বাবার সঙ্গে দেখা করে অরূপ বিশ্বাস জানান, ‘হস্টেলগুলোতে নামে অরাজকতা চলছে। মেধাবী পড়ুয়ারা শেষ হয়ে যাচ্ছে। একটা বাচ্চা মেয়ে কত আশা নিয়ে পড়তে গিয়েছিল। তাঁকে খুন করা হয়েছে। এর জন্য কোর্টের দ্বারস্থ হতে হল। এর বিচার চাই। আমরা সমস্ত সহযোগিতা করব। আমাদের সরকারও ব্যবস্থা নেবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × four =