খালি পেটে খান রসুন, শরীর থাকবে ফিট

স্বাস্থ্যরক্ষায় রসুনের অবদান বিরাট। কারণ, রসুন একটি শক্তিশালী অ্যান্টিবায়োটিক। সকালে ব্রেকফাস্টের আগে রসুন খেলে ঠান্ডা লাগা কমে অনেকটাই। রসুনের অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রক্তকে পরিশুদ্ধ করে। কিছু ভাইরাস ও সংক্রমণজনিত অসুখ, যেমন নিউমোনিয়া, ব্রংকাইটিস, হাঁপানি, হুপিং কাফ প্রতিরোধ করে রসুন। যক্ষ্মায় আক্রান্ত রোগীর পথ্যে সারা দিনে কয়েক কোয়া রসুন খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা।

এছাড়াও রসুন ওজন কমাতে এক্সপর্ট। বিশেষ করে পেটের মেদ। কাঁচা রসুনের মধ্যে থাকা সালফার শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে, খাবার হজম করায়, বিপাকহার উন্নত হয়।ফলে শরীরের বেসাল মেটাবলিক রেট বাড়ে ও ওজন কমে ঝটপট।

এর পাশাপাশি একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, রসুন হাই ব্লাড প্রেশার কমায়। রসুনের রস হার্টের জন্যও খুব উপকারী। ইউনিভার্সিটি অফ কানেটিকাটের স্কুল অফ মেডিসিন–এর কার্ডিওভাসকুলার রিসার্চ টিমের বিজ্ঞানীদের দাবি, কাঁচা রসুন খেলে হার্ট অনেক বেশি সুস্থ থাকে।

শুধু তাই নয়, নিয়মিত রসুন খেলে মোট কোলেস্টেরল ও খারাপ কোলেস্টেরল এলডিএলের প্রায় ১০–১৫ শতাংশ কমে যায়।

এর পাশাপাশি রসুন রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে, ফলে ব্লাড সুগার রোগীদের জন্য রসুন খুব উপকারী। রসুন শরীর থেকে টক্সিন দূর করে। আমাদের শরীরে প্রচুর ফ্রি র‌্যাডিক্যালস তৈরি হয়, যা হার্ট ও অন্যান্য অঙ্গের জন্য ক্ষতিকর। রসুনের অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট প্রপার্টি সেই ক্ষতির হাত থেকে শরীরকে বাঁচায়।

এছাড়াও রসুন যকৃত এবং মূত্রাশয়কে ভাল রাখে। রসুন পেটের নানা গোলমাল, হজমের সমস্যা, ডায়ারিয়া সারায়, ফলে যকৃত থাকে সুস্থ। পাশাপাশি, রসুন স্নায়বিক চাপ কমিয়ে মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

 

এখন কথা হল কীভাবে রসুন খেলে উপকার পাওয়া যাবে তা নিয়ে

 

সকালে খালি পেটে কাঁচা রসুনের সঙ্গে ঈষদুষ্ণ জল মিশিয়ে খান। কিংবা, রসুনের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে খান। রসুনের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলেও ওজন কমে ঝটপট। সামান্য একটু নুন দিয়ে রসুন খেলেও পেটের মেদ ঝরে দ্রুত। আয়ুর্বেদে তেমনটাই উল্লেখ করা হয়েছে।

আয়ুর্বেদ বলছে, সবচেয়ে ভাল ফল পেতে গেলে সাপ্লিমেন্ট না খেয়ে খেতে হবে কাঁচা রসুন। কাঁচা রসুনের যত উপকার, রান্না করার পর আর তত থাকে না। কাঁচা রসুনে থাকে অ্যালিসিন, যা ওষুধের মত কাজ করে।

রসুন কাটা বা বাটার পর সঙ্গে সঙ্গে খেয়ে না নিলে অ্যালিসিন আস্তে আস্তে উবে যায়। সে জন্যই রসুন শুকিয়ে বা রান্নায় দিয়ে খেলে উপকার কমে যায়। প্যাকেটের রসুন বাটা বা সাপ্লিমেন্টেও এই উপকার থাকে না। তাছাড়া, অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টের মাত্রাও বেশি থাকে কাঁচা রসুনে।

 

এখন কথা হল কতটা রসুন খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী

 

পূর্ণবয়স্কদের ক্ষেত্রে ২-৩টি রসুনের কোয়া খেতে বলছেন পুষ্টিবিদরা। রোজ সকালে এক কোয়া রসুন কাঁচা চিবিয়ে খেলে সবচেয়ে বেশি উপকার মেলে। তবে, একান্ত-ই সকালে খেতে না পারলে কোনও ক্ষতি নেই। বিকেল-দুপুর বা রাতে খেতে পারেন। তবে খেতে হবে কাঁচা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − thirteen =