শিক্ষক নিয়োগে ফের বাধ্যতামূলক হল পুলিশ ভেরিফিকেশন এবং মেডিক্য়াল ফিটনেস টেস্ট

শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে এবার এক গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশিকা জারি করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। এই নির্দেশিকায় স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে যে, নিয়োগপত্র পাওয়ার পর স্কুলে যোগ দেওয়ার আগে বাধ্যতামূলকভাবে করাতে হবে পুলিশ ভেরিফিকেশন এবং মেডিকেল ফিটনেস টেস্ট। তবেই স্কুলে যোগ দিতে পারবেন সংশ্লিষ্ট শিক্ষক বা শিক্ষিকারা। সম্প্রতি রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তরের তরফে এই নির্দেশিকাকে স্থগিত করে রাখা হয়েছিল। তবে এই নির্দেশিকা ফের কার্যকর করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

এর আগে পুলিশ ভেরিফিকেশন ও মেডিকেল ফিট সার্টিফিকেট ছাড়া কর্মক্ষেত্রে যোগ দেওয়ার অভিযোগ সামনে এসেছে। তাই এবার থেকে শিক্ষক বা শিক্ষিকা নিয়োগপত্র হাতে পেলেও বাধ্যতামূলকভাবে করতে হবে পুলিশ ভেরিফিকেশন এবং মেডিকেল ফিটনেস টেস্ট। এই দুটি র্টিফিকেট পেলে তবেই স্কুলে যোগ দিতে পারবেন শিক্ষক শিক্ষিকারা। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে থেকে নযা নির্দেশিকার কথা জানানো হয়েছে রাজ্যজুড়ে প্রত্যেকটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রধান শিক্ষিকাদের।

প্রসঙ্গত, রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির ক্ষেত্রে দীর্ঘ দিন ধরে চলছে তদন্ত। সিবিআই ও ইডি যৌথভাবে চালাচ্ছে তদন্ত। ইতিমধ্যেই তদন্তে গ্রেপ্তারির তালিকাও ক্রমশ দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। দুর্নীতির ক্ষেত্রে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ থেকে শিক্ষা দপ্তরের বিরুদ্ধেও রয়েছে পবিস্তর অভিযোগ। যার এক একটি ইস্য়ুকে সামনে এনে শাসকদলকে বিদ্ধ করছেন বিরোধীরা।  আর এখানেই বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা সেই কারণেই এবার থেকে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে কোনও দিকেই কোনওরকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না পর্ষদ। নয়া নির্দেশিকা তারই প্রমাণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four − 4 =