ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের মতো পাহাড়প্রমাণ দুর্নীতি ১১ সেপ্টেম্বর আদালতে পেশ করা হবে, দাবি সিবিআইয়ের

বিগত এক বছর ধরে  নিয়োগ নিয়ে যে দুর্নীতির ঘটনা সামনে এসেছে তা পাহাড় প্রমাণ বললেও ভুল হবে না। আর এই দুর্নীতির সঙ্গে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই আদালতে তুলনা করে বসল ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ঘটনার কথা। এমনটাই খবর আদালত সূত্রে। সঙ্গে সিবিআইয়ের তরফ থেকে এও দাবি করা হয়েছে, আগামী ১১ সেপ্টেম্বর ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের মতোই পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতির খতিয়ান তারা সামনে আনবে। মঙ্গলবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্য়ায়ের এজলাসে কেন্দ্রীয় সংস্থা এমন দাবি করার পরই বেড়েছে জল্পনা। খুব স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, কোন দুর্নীতির পর্দা ফাঁস হবে তা নিয়ে। এরকমই এক ১১ সেপ্টেম্বরে আমেরিকার বুকে জঙ্গি হামলায় ভেঙে পড়েছিল ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের প্রাথমিক নিয়োগের টেট পরীক্ষার ওএমআর শিট সংক্রান্ত একটি মামলা ছিল মঙ্গলবার। সেই মামলার শুনানিতেই সিবিআই-এর আইনজীবী জানান, ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের আকারের সমান বিশাল দুর্নীতির খতিয়ান নিয়ে আমরা ১১ সেপ্টেম্বর এই এজলাসে হাজির হব। এ কথা শুনে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, তাহলে তো সেটা ভেঙে ফেলা দরকার।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতির একাধিক অভিযোগ সামনে এসেছে আগেই। ২০১৪ সালের টেট নিয়ে মামলার সংখ্যাও নেহাত কম নয়। এই প্রাথমিক নিয়োগের দুর্নীতিতে নাম জড়ানোতেই গ্রেফতার হয়েছেন প্রাক্তন পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য, প্রাক্তন যুব তৃণমূল নেতা কুন্তল সহ কয়েকজন। টাকার বিনিময়ে কী ভাবে চাকরি বিক্রির খেলা চলত, তা নিয়ে বিস্ফোরক সব অভিযোগ সামনে এসেছে। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ও এই সব মামলার শুনানিতে কখনও ‘ধেড়ে ইঁদুর’-এর কথা বলেছেন, কখনও আক্ষেপ করেছেন আসল অপরাধী তাঁর জীবনকালে ধরা পড়বে না! এবার সিবিআই তাঁরই এজলাসে বড় দুর্নীতির পর্দা ফাঁস করার কথা বলল।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ভেঙে পড়েছিল আমেরিকার ‘টুইন টাওয়ার।’ বিমানের ধাক্কায় গুঁড়িয়ে গিয়েছিল নিউ ইয়র্কের বুকে দাঁড়িয়ে থাকা বাণিজ্যের প্রাণকেন্দ্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ও মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দফতর পেন্টাগন। সেই দিনটিকে আমেরিকার নিয়মে ৯/১১ বলেই চিহ্নিত করা হয়। ২২ বছর পরও বহু মানুষের মনে সেই স্মৃতি এখনও দগদগে। সেই তারিখের কথা এবার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই উল্লেখ করায় সবার নজর এখন আদালতের দিকেই।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × one =